free_shipping_English_728x90

ধীরধাম মন্দির : দার্জিলিং-এর হিমালয়ান শহরের একটি রঙিন পরিদর্শন

July 20, 2015
Store-banner

ধীরধাম মন্দির – দার্জিলিং-এর হিমালয়ান শহরের একটি রঙিন পরিদর্শন
অবস্থান : দার্জিলিং, পশ্চিমবঙ্গ

ভারতীয় উপ-মহাদেশের যে কোনো অংশ ভ্রমন করলে, একটি বিষয় নিশ্চিত, আপনি প্রত্যেক জায়গায় অন্তত একটি প্রাচীন শিব মন্দির খুঁজে পাবেনই। টয় ট্রেন রেলওয়ে স্টেশনের উপরে অবস্থিত, ধীরধাম মন্দির এক অন্যতম সুন্দর মন্দির। এই রঙিন মন্দির পরিসীমাটিকে সবচেয়ে পরিচিত হিন্দু দেবতা, ভগবান শিবের বাসভূমি বলে মানা হয়। এটি দার্জিলিং শহরের সবচেয়ে প্রাচীন মন্দির।


ধীরধাম মন্দিরের নির্মাণ কাজ ১৯৩৯ সালে নেপালের রাজা পূর্ণ বাহাদুর প্রধান দ্বারা সম্পন্ন হয়। একটি গোর্খালি স্থাপত্যবিদ নেপালের পশুপতি মন্দিরের স্থাপত্য শৈলীকে মাথায় রেখে এই মন্দিরের নকশা দিয়েছেন। সুতরাং, ধীরধাম মন্দির পশুপতি নাথ মন্দিরের একটি মহান প্রতিচ্ছায়া যা শিবের সবচেয়ে পবিত্র মন্দিরের মধ্যে অন্যতম।


লাল, হলুদ এবং সাদা উজ্জ্বল রং-এ রঙিন এই তিব্বতী শৈলীর পরিকাঠামোযুক্ত এই মন্দিরটি চমৎকার দেখতে। এই মন্দিরের বাইরের দিকটি সবুজ গাছ এবং ঝোপঝাড় দ্বারা বেষ্টিত একটি বহুস্তরযুক্ত প্যাগোডার মত দেখতে। আপনি এই মন্দির প্রাঙ্গনে প্রবেশ করে, শিবের চমত্কার সাদা মূর্তির দিকে এক নজর তাকালে তার পাঁচটি অভিব্যক্তি চোখে পরবে এবং তৃতীয় চক্ষুটিকে সম্মিলিতভাবে “পাঁচ বক্রম ত্রি নেত্রম” বলা হয়।


এই মন্দিরের পিছন থেকে পাহাড় ও উপত্যকার একটি সুন্দর দৃশ্য উপভোগ করা যায়। প্রতিদিন সকালে ৮-টায় ও সন্ধ্যে ৬-টায় আরতি অনুষ্ঠিত হয়। সব ধর্ম, বর্ণ ও জাতির মানুষরা এই মন্দিরে প্রবেশ করতে পারে, এবং ভগবানের আশীর্বাদ নিতে পারে। ফেব্রুয়ারী এবং মার্চ মাসে এই মন্দির এক বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে কাজ করে, যখন এখানে পরম আনন্দ ও উদ্দীপনার সঙ্গে শিবরাত্রি উৎসব পালিত হয়। পশুপতি মন্দিরের একটি চমৎকার প্রতিরূপ হিসাবে, ধীরধাম মন্দির একটি আবশ্যক পরিদর্শনের আহ্বান জানায়।


প্রবেশ : বিনামূল্য।

সময়সীমা : সকাল ৮:০০-টা. থেকে সন্ধ্যা ৬:০০-টা. পর্যন্ত।

More articles from :
Comments

(required)