free_shipping_English_728x90
পশ্চিম বঙ্গ
ভারতের বিভিন্ন মানচিত্র

বিদ্যাসাগর সেতু

Store-banner

Vidyasagar Setu in Bengali

বিদ্যাসাগর সেতু

১৯৯২ সালে নির্মিত বিদ্যাসাগর সেতু, দ্বিতীয় হুগলী সেতু নামে পরিচিত।গঠনশীল উৎকর্ষের প্রকাশ স্বরূপ, পশ্চিমবঙ্গের বিদ্যাসাগর সেতু রাজধানী শহর কলকাতা ও হাওড়ার মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ সংযোগ রূপে কাজ করে। এই সেতু নিয়মিত ৮৫,০০০ যানবাহন নিয়ণ্ত্রণে সাহায্য করে। কলকাতার বিদ্যাসাগর সেতুর সমগ্র পরিকাঠামো দীর্ঘ ২২ বছর পর একটি কার্যকরী সেতুর রূপ নেয়।

নয়টি পথের সমন্বয়ে গঠিত, ৪৫৭ মিটার লম্বা, কাঠামোগতভাবে ১২১-টি ফাঁসের সাহায্যপ্রাপ্ত এটি একটি অনন্য প্রকৌশল আশ্চর্য। বিদ্যাসাগর সেতুর ভিত হুগলী নদীর ১০০ মিটার গভীরে অবস্থিত। ১১৫ মিটার পরিধি সহ এই সেতুর নির্মাণে মোট খরচ হয়েছিল ৩৮৮ কোটি টাকা।

পশ্চিমবঙ্গের আকর্ষণের অন্যতম, কলকাতার বিদ্যাসাগর সেতুতে প্রতি বছর শত শত এবং হাজার হাজার দর্শকের ভিড় হয়। বস্তুত বিদেশী ভ্রমণকারীরা, যারা পূর্ব ভারতের পর্যটন গন্তব্যগুলি অন্বেষণ করতে আসেন, তারা বিদ্যাসাগর সেতু ভ্রমনে একটি অদ্ভুত আনন্দ পাবেন এটি নিশ্চিত।

পর্যটন জনপ্রিয়তা ছাড়াও, পশ্চিমবঙ্গের বিদ্যাসাগর সেতু হল এক গুরুত্বপূর্ণ সংযোজক বিন্দু যা কলকাতা শহরের সাথে কাছাকাছি অবস্থিত বেঙ্গল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ ও বোটানিক্যাল গার্ডেন -এর মধ্যে সংযোগ স্থাপন করে। বিদ্যাসাগর সেতু নির্মিত হওয়ার পর, কলকাতার হাওড়া সেতু ক্রমবর্ধমান যানবাহন চলাচলের ভিড় থেকে মুক্তি পেয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গের দৈনিক যাত্রীরা এখন বিদ্যাসাগর সেতুর জন্য একটি ঝঞ্ঝাট-মুক্ত যাত্রা উপভোগ করতে পারেন।

* সর্বশেষ সংযোজন : ১৯- শে মার্চ, ২০১৫