free_shipping_English_728x90
পশ্চিম বঙ্গ
ভারতের বিভিন্ন মানচিত্র

পশ্চিমবঙ্গ যাদুঘর

Store-banner

Museums of West Bengal in Bengali

পশ্চিমবঙ্গ যাদুঘর

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে বহু অগ্রণী মিউজিয়াম ও মর্যাদাপূর্ণ প্রতিষ্ঠান আছে। তার মধ্যে কিছু আধুনিক ও কিছু পুরাতন সময়ের নিদর্শনাদি।
পশ্চিমবঙ্গের কিছু সুপরিচিত মিউজিয়ামগুলি হল নিম্নলিখিত -

অ্যাকাডেমি অফ ফাইন আর্টস

এখানে ভারতীয় শিল্প, চিত্রাঙ্কন, বস্ত্র, ভাস্কর্য, সূক্ষ্ম চিত্রকলা এবং পান্ডুলিপির এক বিখ্যাত সংগ্রহ আছে।
শহর – কলকাতা
ধারা – শিল্পকলা
ঠিকানা – ২, ক্যাথিড্রাল রোড, কলকাতা ৭০০০৭১, পশ্চিমবঙ্গ
সময়-সীমা – মিউজিয়াম – প্রতিদিন দুপুর ১২-টা থেকে সন্ধ্যে ৭-টা (সোমবার বন্ধ), আর্ট গ্যালারি – প্রতিদিন দুপুর ৩-টে থেকে সন্ধ্যে ৮-টা (জাতীয় ছুটির দিনগুলিতে বন্ধ)।

বিড়লা ইন্ডাস্ট্রিয়্যাল অ্যান্ড টেকনোলজিক্যাল মিউজিয়াম

এটা বাস্তব বিজ্ঞানের অভিজ্ঞতা উপভোগের জন্য এটি একটি চমৎকার জায়গা। এখানে মৌলিক থেকে আধুনিক বিজ্ঞানের নকশা কাজ এবং বিভিন্ন শ্রেণীর ব্যাপক সংখ্যক গ্যালারি রয়েছে।
শহর – কলকাতা
ধারা – বিজ্ঞান
ঠিকানা – ১৯-এ, গুরুসদয় রোড, কলকাতা ৭০০০১৯, পশ্চিমবঙ্গ
সময় – ১০-টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫-টা (সোমবার বন্ধ)

গুরুসদয় মিউজিয়াম

এই মিউজিয়ামে সমৃদ্ধ লোক-কলা এবং বাংলার কারুশিল্প এবং প্রদর্শনের জন্য দুই হাজারেরও বেশী উপকরণের সংগ্রহ রয়েছে।
শহর – কলকাতা
ধারা – লোকশিল্প
ঠিকানা – ডায়মন্ড হারবার রোড, ব্রতচারীগ্রাম, জোকা, কলকাতা ৭০০১০৪, পশ্চিমবঙ্গ।
সময় – সকাল সাড়ে ৯-টা থেকে বিকেল ৬-টা।

ইন্ডিয়্যান মিউজিয়াম

এই মিউজিয়াম ভারতীয় ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি প্রদর্শণ করে। এটি ছয়টি বিভাগের সমন্বয়ে গঠিত যেখানে সাংস্কৃতিক ও বৈজ্ঞানিক তাৎপর্যমূলক ৩৫-টি গ্যালারী রয়েছে।
শহর – কলকাতা
ধারা – বহুবিধ
ঠিকানা – ২৭, জওহারলাল নেহেরু রোড, পার্ক স্ট্রিট এলাকা, কলকাতা – ৭০০০১৬ পশ্চিমবঙ্গ
সময় – সকাল ১০-টা থেকে বিকেল ৫-টা (মার্চ থেকে নভেম্বর), সকাল ১০-টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪-টা (ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি); প্রতি সোমবার এবং জাতীয় ছুটির দিন বন্ধ।

ইন্ডিয়্যান মিউজিয়াম ভারতের প্রাচীনতম এবং বৃহত্তম মিউজিয়াম। মূলত ইন্ডিয়্যান মিউজিয়াম এশিয়াটিক সোসাইটিরই একটি অংশ ছিল এবং ১৮৭৫ সালে জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত হয়। এটি পার্ক স্ট্রিট ও চৌরঙ্গী রাস্তার সংযোগস্থলে ২৭ জওহারলাল নেহেরু রোডে অবস্থিত। এই মিউজিয়াম সোমবার বন্ধ থাকে এবং পরিদর্শনের সময় হল সকাল ১০-টা থেকে বিকেল ৫-টা। ইন্ডিয়্যান মিউজিয়াম এশিয়ার এক সেরা মিউজিয়াম। এখানে বর্তমান বিপুল বৈচিত্র্যের সংগ্রহের আমাদের আশ্চর্য করে দেয়, যেগুলি হল ভাস্কর্য, জীবাশ্ম, উল্কা, ভ্রূণ এবং প্রাগৈতিহাসিক প্রাণীদের কঙ্কাল। এছাড়াও এই মিউজিয়ামে অসাধারণ চিত্রকলা এবং প্রাচীন এবং আধুনিক ভারতীয় নিদর্শন প্রদর্শন করা হয়।

প্রভু বুদ্ধের দেহাবশেষ ভস্ম, ইন্ডিয়ান মিউজিয়ামের এক মূল্যবান সম্পদ। এই মিউজিয়াম ছাত্রদের বিভিন্ন বিষয়ের উপর শিক্ষা দান করতে সহায়তা করে যেমন ইতিহাস, ভূগোল, জীববিজ্ঞান, নৃবিজ্ঞান। মিশরীয় মমি এই জাদুঘরের একটি আকর্ষণীয় নিদর্শন। এখানে একটি গ্যালারি আছে যেখানে ৫০,০০০-টি মুদ্রার বিস্ময়কর সংগ্রহ প্রদর্শণ করা হয়। এই মিউজিয়ামের এক বিশেষ আকর্ষণ হল – গান্ধার শিল্প, জীবাশ্ম এবং আদিম পশুদের কঙ্কাল, কালীঘাট পাল, তিব্বতী থানকা, এবং অন্যান্য বিরল চিত্রাঙ্কন।

কলকাতার ইন্ডিয়ান মিউজিয়াম ছয় ভাগে বিভক্ত –

  • প্রত্নতত্ত বিদ্যা - এই মিউজিয়ামের প্রাচীন নিদর্শনাদি বিভাগ ২৫০০ খ্রিষ্টপূর্বাব্দ থেকে ১৫০০ খ্রিষ্টপূর্বাব্দের মহেঞ্জোদারো এবং হরপ্পা সভ্যতার প্রাগৈতিহাসিক যুগের ভারত ও বিদেশের প্রস্তর যুগের প্রত্নসম্পদ প্রদর্শণ করে। এখানের এক বিশেষ গ্যালারিতে ভারতীয় বাদ্যযন্ত্র প্রদর্শন করা হয়।

  • কলা - কলা বিভাগ প্রদর্শন করে – মধ্যযুগীয় ভারতের চিত্রকর্ম, বিদ্রিদ্রব্য, তিব্বতী মন্দিরের পতাকা, ধাতু এবং কাঠের ভাস্কর্য, গজদন্ত এবং অস্থি ভাস্কর্য, মিনা অলঙ্কার, গহনা, রৌপ্য অলঙ্কার, কাচের কাজ, মৃৎশিল্প, বার্ণিশ করা খেলনা, জেড এবং স্ফটিকের কারুশিল্প। এছাড়াও ভারতের বিভিন্ন প্রান্তের বস্ত্র এখানে দেখা যায়।

  • জীববিজ্ঞান - ইন্ডিয়্যান মিউজিয়ামের প্রাণীবিজ্ঞান বিভাগ ভারতের মধ্যে বৃহত্তম যা মৎস্য, স্তন্যপায়ী প্রাণী, কীটপতঙ্গ, সরীসৃপ ও পাখিদের বিভিন্ন নমুনার জন্য বিখ্যাত।

  • নৃবিজ্ঞান - নৃবিজ্ঞান বিভাগ ভারতের উভয় উপজাতি ও অ-উপজাতীয় জনগণের অগণিত বস্তু নিয়ে গঠিত।

  • ভূবিদ্যা - ভূতাত্ত্বিক বিভাগ ৮০,০০০ এরও অধিক নমুনা প্রদর্শণ করে যেগুলি হল – জীবাশ্ম, আলংকারিক নির্মাণ পাথর, উল্কাপিণ্ড, মূল্যবান পাথর, শিলা ও খনিজ পদার্থ।

  • শিল্প (অর্থনৈতিক উদ্ভিদ) – শিল্প বিভাগে উদ্ভিদবিদ্যার অসংখ্য যথা কুটির শিল্প, ঔষধ, কৃষি ও বনজবিদ্যার নমুনা আছে।


মালদা মিউজিয়াম

এই মিউজিয়ামে এই অঞ্চলের নৃতাত্ত্বিক এবং স্থাপত্য নমুনা সংরক্ষিত আছে। এখানে প্রাচীন ভাস্কর্য, হস্তনির্মিত উপাদান, চীনামাটির বাসন, শিলালিপি ও অনান্য উপকরণ প্রদর্শন করা হয়।
শহর – ইংরেজ বাজার
ধারা – ইতিহাস
ঠিকানা – বাঁধরোড, ইংরেজ বাজার, পশ্চিমবঙ্গ।
সময় – সাড়ে ১০-টা থেকে ৫-টা , বুধবার ২-টা পর্যন্ত (বৃহস্পতিবার বন্ধ)

মার্বেল প্যালেস

মার্বেল প্যালেস ইউরোপীয় দেশগুলির শিল্পকলার রূপকে প্রদর্শণ করে। এই প্রাসাদে অসংখ্য শিল্পকলার উপাদান উপস্থিত রয়েছে যেমন – মূর্তি, চিত্রাঙ্কন, তৈলচিত্র, ইত্যাদি।
শহর – কলকাতা
ধারা – ঐতিহাসিক সৌধ
ঠিকানা – ৪৬, মুক্তারামবাবু স্ট্রিট, কলকাতা ৭০০০০৭, পশ্চিমবঙ্গ
সময় – সকাল ১০-টা থেকে বিকেল ৪-টে (সোমবার এবং বৃহস্পতিবার বন্ধ)।

নেহরু মিউজিয়াম অফ সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি

এই মিউজিয়াম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উন্নয়নকে প্রতিমাণ, পরীক্ষা, বাহ্যিক প্রকাশ ইত্যাদির মাধ্যমে একটি ঐতিহাসিক চেহারা প্রদান করে।
শহর – খড়গপুর
ধারা – বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিদ্যা
ঠিকানা – খড়গপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর, পশ্চিম বঙ্গ
সময় – সকাল সাড়ে ৯-টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২-টা ও দুপুর ৩-টে থেকে বিকেল সাড়ে ৬-টা (শনিবার, রবিবার এবং জাতীয় ছুটির দিনগুলিতে বন্ধ থাকে)।

নেতাজি ভবন

এটি একটি আকর্ষণীয় স্থান যা সুভাষ চন্দ্র বোসের জীবন ও দর্শনকে উদযাপন করে। এখানের বিভিন্ন কক্ষে নেতাজী সম্পর্কিত বহু জিনিস আছে।
শহর – কলকাতা
ধারা – স্মৃতি কক্ষ
ঠিকানা – লালা লাজপত রায় সরণি, নেতাজী ভবন মেট্রো স্টেশনের কাছাকাছি, কলকাতা
সময় – সকাল ১১-টা থেকে বিকাল সাড়ে ৪-টে (মঙ্গলবার থেকে রবিবার)।

রবীন্দ্র ভারতী মিউজিয়াম (জোড়াসাঁকো ঠাকুরবাড়ি)

এই মিউজিয়াম রবীন্দ্র নাথ ঠাকুরের স্মৃতি বহন করে। এটা ঠাকুর পরিবারের পৈতৃক বাসস্হান এবং বর্তমানে রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি অংশ।
শহর – কলকাতা
ধারা – ইতিহাস
ঠিকানা – ৬/৪, দ্বারকানাথ ঠাকুর লেন, কলকাতা – ৭০০০০৭, পশ্চিমবঙ্গ
সময় – সকাল ১০-টা থেকে বিকাল ৫-টা (সোমবার থেকে শুক্রবার) সকাল ১০-টা থেকে দুপুর ১.৩০-টা (শনিবার), রবিবার, সরকারি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছুটির দিন বন্ধ।

কলকাতা সায়েন্স সিটি

সায়েন্স সিটি ভারতে বিজ্ঞান মিউজিয়ামের/কেন্দ্রের সর্বোচ্চ বিভাগের অধীন এবং দুটি সুবিধা যুক্ত যথা – সায়েন্স সেন্টার এবং কনভেনশন সেন্টার।
শহর – কলকাতা
ধারা – বিজ্ঞান
ঠিকানা – জে.বি.এস. হ্যালডেন এভিনিউ, কলকাতা ৭০০০৪৬, পশ্চিমবঙ্গ
সময় – প্রত্যহ সকাল ৯-টা থেকে রাত ৯-টা।

দ্য এশিয়াটিক সোসাইটি

এশিয়াটিক সোসাইটিতে তার নিজস্ব একটি মিউজিয়াম আছে যেখানে গুরুত্বপূর্ণ সংগ্রহ, শিলালিপি, ভাস্কর্য, পাণ্ডুলিপি, স্মৃতি ইত্যাদি রয়েছে।
শহর – কলকাতা
ধারা – সামাজিক ইতিহাস
ঠিকানা – ১, পার্ক স্ট্রিট, কলকাতা -৭০০০১৬, পশ্চিমবঙ্গ
সময় – সোমবার থেকে শুক্রবার – সকাল ১০-টা থেকে সন্ধ্যে ৮-টা পর্যন্ত, শনিবার – সকাল ৯.৪৫-টা থেকে বিকাল ৬.১৫-টা পর্যন্ত (রবিবার বন্ধ)।

আশুতোষ মিউজিয়াম অফ ইন্ডিয়্যান আর্ট

আশুতোষ মিউজিয়াম ইন্ডিয়ান আর্ট ১৯৩৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এই মিউজিয়ামের নাম উদ্ভূত হয়েছে প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ, আশুতোষ মুখার্জীর নাম থেকে। এই মিউজিয়াম, বাংলার পণ্ডিতদের দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয় পশ্চিমবঙ্গের ঐতিহাসিক এবং সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য সংরক্ষণ করার উদ্দেশ্য নিয়ে। আপনি সকাল ১০.৩০-টা থেকে বিকেল ৫-টা অবধি এই মিউজিয়াম পরিদর্শন করতে পারেন। আশুতোষ মিউজিয়াম ইন্ডিয়ান আর্ট শনিবার, রবিবার এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ছুটির দিন গুলিতে বন্ধ থাকে।

এই মিউজিয়াম প্রতিষ্ঠার মূল উদ্দেশ্য হল ভারত ও বিশেষ করে পূর্ব ভারত ও পশ্চিমবঙ্গের সাথে সম্পর্কিত সাংস্কৃতিক বস্তুর সংগ্রহ ,সংরক্ষণ ও প্রদর্শন করা।এটি ভারতের বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম এক মিউজিয়াম যা ভারতীয় শিল্পকর্মের কিছু অসাধারণ ভাণ্ডার প্রদর্শন করে। বিভিন্ন হস্তনির্মিত বস্তু প্রদর্শন ছাড়াও এটি গ্রামাঞ্চলে সাংস্কৃতিক সমীক্ষা এবং পশ্চিমবঙ্গের ঐতিহাসিক তাৎপর্যপূর্ণ স্থানগুলিতে প্রত্নতাত্ত্বিক খননের আয়োজন করে।

কলকাতায় আশুতোষ মিউজিয়াম অফ ইন্ডিয়ান আর্টের প্রদর্শণগুলি বাংলার সংস্কৃতির উপর বিশেষ গুরুত্ব প্রদান করে, যা ভারতের সকল প্রান্ত থেকে সংগৃহীত। কিছু আকর্ষণীয় সংগ্রহগুলি হল ব্যাসাল্ট শিলা দ্বারা তৈরি পাল ও সেন যুগের ভাস্কর্য যা উভয় হিন্দু ও বৌদ্ধ শৈলীর আকর্ষণীয় বৈশিষ্ট্যের সংমিশ্রণ। বিষ্ণুপুর এলাকার মন্দিরের অন্তর্গত সূক্ষ্ম কারুকার্য সম্পন্ন খোদাই করা মৃণ্ময় মূর্তি, যা আপনি দেখতে পছন্দ করবেন। এই মিউজিয়াম কিছু প্রাচীন পাণ্ডুলিপি প্রদর্শন করে যেমন- গুজরাটের ষোড়স শতকের কল্পসুত্র এবং অষ্টাদশ শতকের রামায়ণের একটি পাণ্ডুলিপি। পটচিত্রের একটি অনন্য সংকলন, বাংলার চিত্রাঙ্কন, তালপাতার পাণ্ডুলিপি, খেলার তাস, আনুষ্ঠানিক বস্তু, খেলনা এবং পুতুল এরকম অনেক কিছু আপনি এখানে দেখতে পাবেন। বস্ত্র প্রদর্শনীর অন্তর্ভুক্ত হল -বাংলার অত্যন্ত সুন্দরভাবে অলঙ্কৃত কাঁথা,অনন্য বালুচরি শাড়ি এবং সূক্ষ্ম প্যাচ ওয়ার্ক কৌশল।
যদি আপনি এই মিউজিয়াম পরিদর্শন করতে চান, তার সম্পূর্ণ ঠিকানা হল নিম্নরূপ –
সেন্টেনারি বিল্ডিং
কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় (পশ্চিম)
কলেজ স্ট্রিট,
কলকাতা – ৭০০ ০১২

এথনোগ্রাফিক মিউজিয়াম

ভারতের সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য বহন করার এক জনপ্রিয় মাধ্যম হল এই মিউজিয়াম। এথনোগ্রাফিক মিউজিয়াম সুনির্দিষ্ট সংস্কৃতির সঙ্গে সম্পর্কিত নৃতাত্ত্বিক নমুনা প্রদর্শন করে। দ্য কালচারাল রিসার্চ ইন্সটিটিউট পশ্চিমবঙ্গ সরকারের অধীনে ১৯৫৫ সালে এথনোগ্রাফিক মিউজিয়াম স্থাপন করে। এই মিউজিয়াম সাধারণ জনসাধারণের জন্য রবিবার ও ছুটির দিনগুলিতে বন্ধ থাকে এবং অন্যান্য দিনগুলিতে সকাল ১০.৩০-টা থেকে বিকেল ৫.৩০-টা এবং শনিবার সকাল ১০.৩০-টা থেকে ২-টা অবধি খোলা থাকে।

কলকাতার এথনোগ্রাফিক মিউজিয়ামে প্রদর্শিত নিবন্ধ গুলি হল – শিকারের অস্ত্র ও সরঞ্জাম, পোশাক এবং গয়না, মাছ ধরার সরঞ্জাম ইত্যাদি। আপনি এখানে বিভিন্ন ধরণের পাত্র, আসবাবপত্র এবং তাঁত বোনার চরকা দেখতে পাবেন। এই বস্তুগুলি বিভিন্ন সংস্কৃতির সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের উপর আলোকপাত করে। এছাড়াও এই প্রদর্শনীতে ধর্ম এবং যাদু সম্পর্কিত প্রবন্ধ রয়েছে।

নৃবিজ্ঞানের উপর গবেষণা করছেন এরকম ছাত্রদের জন্য এথনোগ্রাফিক মিউজিয়াম খুবই সহায়ক হতে পারে। এথনোগ্রাফিক মিউজিয়ামের ছবি ও লোক সঙ্গীতের টেপ ভারতীয় উপজাতিদের জীবন শৈলীর বর্ণনা করে। এই প্রদর্শনীগুলো গভীর ভাবে বুঝলে ভারতের বিভিন্ন উপজাতিদের জীবনধারা খুব সহজে বিশ্লেষন করা যায়। এই নিবন্ধগুলি পাঠ করলে আপনি খুব ভালো ভাবে বিভিন্ন সভ্যতার সম্পর্কে জানতে পারবেন।

আপনি যদি বিভিন্ন প্রকারের সংস্কৃতি সম্পর্কে জানতে আগ্রহী হন এবং কালচারাল রিসার্চ ইনস্টিটিউটের এথনোগ্রাফিক মিউজিয়াম পরিদর্শন করতে চান, তার জন্য এখানে আপনাকে সম্পূর্ণ ঠিকানা দেওয়া হল –

কালচারাল রিসার্চ ইনস্টিটিউট
ট্রাইবাল ওয়েলফেয়ার ডিপার্টমেন্ট
নিউ সেক্রেটারিয়েট বিল্ডিং(১ – ম তলা)
১ – কে.এস রায় রোড
কলকাতা ৭০০০০১
পশ্চিমবঙ্গ, ভারত।

ক্র্যাফটস্ মিউজিয়াম

কোন জায়গার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যকে সংরক্ষণ ও সমৃদ্ধ করার জন্য একটি মিউজিয়াম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। রাজধানী শহর কলকাতা, তার সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের জন্য পরিচিত যেখানে বহু মিউজিয়াম আছে, যারা সত্যিই তার সংস্কৃতিকে প্রতিফলিত করে। বিভিন্ন গন্তব্যস্থল থেকে পর্যটকরা এখানে পরিদর্শন করতে আসে – বিড়লা একাডেমি অফ আর্ট ও কালচার মিউজিয়াম, বিড়লা ইন্ডাস্ট্রিয়াল আ্যন্ড টেকনোলজিক্যাল মিউজিয়াম, ক্র্যাফটস্ মিউজিয়াম, ইন্ডিয়ান মিউজিয়াম,নেহরু চিলড্রেন্স মিউজিয়াম, আশুতোষ মিউজিয়াম অফ ইন্ডিয়ান আর্ট, ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল,এশিয়াটিক সোসাইটি ইত্যাদি।

কলকাতার ক্র্যাফটস্ মিউজিয়াম ১৯৫০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। ক্র্যাফটস্ মিউজিয়াম শিল্পকর্ম ও হস্তনির্মিত বস্তু প্রদর্শণ করে, প্রতিটি মিউজিয়াম গ্যালারি চারু ও কারু কলার একটি অভিভূতকারী অভিজ্ঞতা দেয়। এই মিউজিয়াম গ্রামীণ শিল্পকলা, গুজরাত, পশ্চিমবঙ্গ, ত্রিপুরা, তামিলনাড়ু, আসাম, মহারাষ্ট্র, উত্তর প্রদেশ, হরিয়ানা, রাজস্থান, কর্ণাটকের মত ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের কারুশিল্পের বিপুল সংগ্রহ প্রদর্শন করে। গজদন্ত থেকে তৈরি শিল্প এবং ধাতু এখানে উপলব্ধ। এই মিউজিয়ামে একটি ভাল গ্রন্থাগার এবং ফোটোগ্রাফিক রেকর্ড আছে, যা এই শিল্পকর্মের পটভূমিতে আলোক নিক্ষেপ করে। ভারতের বিভিন্ন রাজ্য ও জেলা থেকে আনা বেশ কিছু বস্ত্রের বৈচিত্র্য এখানে প্রদর্শন করা হয়। ক্র্যাফটস্ মিউজিয়াম সকাল ১০-টা থেকে বিকেল ৫-টা পর্যন্ত সব সাপ্তাহিক কর্মের দিনগুলিতে জনসাধারণের জন্য খোলা থাকে। আপনি যদি একই ছাদের নীচে ভারতের বিভিন্ন ঐতিহ্যগত বস্ত্র, চারু ও কারুশিল্প উপভোগ করতে চান তাহলে ক্র্যাফটস্ মিউজিয়াম পরিদর্শন হল একদম সেরা জায়গা।
আপনার সুবিধার জন্য এখানে ক্রাফটস্ মিউজিয়ামের ঠিকানাটি দেওয়া হল –

৯ – ১২, ওল্ড কোর্ট হাউস স্ট্রিট,
কলকাতা ৭০০ ০০১
পশ্চিমবঙ্গ।

* সর্বশেষ সংযোজন : ১৭ - ই এপ্রিল, ২০১৫