free_shipping_English_728x90

ভারতে সামাজিক নিরাপত্তার জন্য অটল পেনশন যোজনা (এ.পি.ওয়াই)

June 16, 2015
Store-banner

আর্থিক সুরক্ষার জন্য বার্ধক্যভাতা প্রকল্প

ভারতে সামাজিক নিরাপত্তার জন্য অটল পেনশন যোজনা (এ.পি.ওয়াই)

জনসাধারণের জন্য আর্থিক অন্তর্ভুক্তি, সামাজিক নিরাপত্তা, এবং স্বল্প-খরচ সুবিধা এন.ডি.এ সরকারের আলোচ্যসুচীর প্রধান বিষয়। নরেন্দ্র মোদী সরকারের কেন্দ্রে আগমনের সময় থেকে, প্রধানমন্ত্রী মোদী, অর্থমন্ত্রী জেটলি ও মন্ত্রিসভা সাধারণ মানুষের জন্য একটি অর্থনৈতিক নিরাপত্তা প্রকল্প জারি করার তাগিদে অক্লান্তভাবে পরিশ্রম করে চলেছেন। সামাজিক নিরাপত্তার উদ্দেশ্যে প্রথম পদক্ষেপটি ছিল প্রধান মন্ত্রী জন্ ধন্ যোজনা (পি.এম.জে.ডি.অয়াই)। প্রথম পর্যায়ে একটি বড় সাফল্য ঘোষিত হয় এবং দেশ জুড়ে ১.৮ কোটি অ্যাকাউন্ট খোলা হয়, সরকার ২০১৫ সালের ৯-ই মে তিনটি নতুন প্রকল্প চালু করেন – দুটি বীমা প্রকল্প (প্রধান মন্ত্রী জীবন জ্যোতি বীমা যোজনা এবং প্রধান মন্ত্রী সুরক্ষা বীমা যোজনা) এবং একটি বার্ধক্যভাতা প্রকল্প (অটল পেনশন যোজনা)। এই পর্যায়কে পি.এম.জে.ডি.অয়াই – এর দ্বিতীয় পর্যায় বলা হয়, কারণ মানুষদের মূলধারার ব্যাঙ্কিং পরিষেবা পাওয়ার আগে তাদের কিছু সুবিধা বৃদ্ধি করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

অটল পেনশন যোজনা

অর্থমন্ত্রী জেটলি তার ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারির বাজেট বক্তৃতায় বলেন – “ আমাদের তরুণ জনসংখ্যার যুগে বার্ধক্যভাতা-কম হতে চলেছে। প্রধান মন্ত্রী জন্ ধন্ যোজনার এক বিশাল সাফল্যের পর আমি সকল ভারতীয়ের জন্য একটি সার্বজনীন সামাজিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নির্মাণের দিকে পদক্ষেপ নিয়েছি, যা এটি নিশ্চিত করে যে – কোন ভারতীয় নাগরিক তার অসুস্থতা, দুর্ঘটনা বা বৃদ্ধ বয়সের দারিদ্রতা সম্পর্কে চিন্তা করবে না”। এই আদর্শের সঙ্গে তাল মিলিয়ে, একটি জাতীয় বার্ধক্যভাতা প্রকল্প, অটল পেনশন যোজনা ২০১৫ সালের ১-লা জুন থেকে কার্যকর হতে চলেছে। এই বার্ধক্যভাতা প্রকল্পের সুবিধা হল অসংগঠিত ক্ষেত্রের মানুষদের প্রতি মাসে খুব স্বল্প পরিমান অর্থ বিনিয়োগ করে সামাজিক নিরাপত্তা ভোগ করা।

বেসরকারি খাতে বা কোন বৃত্তিতে নিযুক্ত মানুষরা যারা বার্ধক্যভাতার সুবিধা পাননা, তারা এই প্রকল্পের জন্য আবেদন করতে পারেন। ৬০ বছর বয়সের পর তারা ১,000/- টাকা, বা ২,000/- টাকা, বা ৩,000/- টাকা, বা ৪,000/- টাকা, বা ৫,000/- টাকার একটি নির্দিষ্ট বার্ধক্যভাতা নির্বাচন করতে পারেন। অর্থ বিনিয়োগের পরিমাণ এবং ব্যক্তির বয়স অনুযায়ী বার্ধক্যভাতা নির্ধারণ করা হবে। আবেদানকারীর মৃত্যুর পরে, আবেদানকারীর স্ত্রী বার্ধক্যভাতা দাবী করতে পারেন এবং স্ত্রীর মৃত্যুর পর মনোনীত ব্যক্তি (নমিনি) সেই অর্থ পাবেন।

সরকার কর্তৃক নির্ধারিত বিনিয়োগ নিয়মানুযায়ী এই প্রকল্পের অধীনে পেনশন তহবিল দ্বারা এই অর্থ সংগৃহীত হবে। ব্যক্তিগত প্রার্থীদের পেনশন তহবিল বা বিনিয়োগ বণ্টনে নির্ধারিত কোন উপায় নেই।

অটল পেনশন যোজনার উপকারিতা

অটল পেনশন প্রকল্প বৃদ্ধ ভারতীয়দের জন্য নিরাপত্তা আনে, তার সাথে সমাজের নিম্ন এবং নিম্ন মধ্যবিত্ত জনসাধারণের মধ্যে সঞ্চয় ও বিনিয়োগের একটি সংস্কৃতি প্রচার করে। এই প্রকল্পের সবচেয়ে বড় সুবিধাটি সম্ভবত সমাজের দরিদ্র বিভাগ দ্বারা আস্বাদিত হবে। ভারত সরকার ব্যবহারকারীর বিনিয়োগে ৫০ শতাংশ প্রদান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বা পাঁচ বছরের একটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য প্রতি বছর ১০০০/- টাকা প্রদান করবে (যেটা সব থেকে কম)। এটি শুধুমাত্র তারাই উপভোগ করবেন যারা আয় করদাতা নয় এবং যারা ৩১-শে ডিসেম্বর ২০১৫ সালের আগে এই প্রকল্পে নিযুক্ত হবেন।

এই প্রকল্পের জন্য কারা উপযুক্ত ?

১৮ থেকে ৪০ বছর বয়সের সকল ভারতীয়দের জন্য অটল পেনশন যোজনা (এ.পি.অয়াই) উপলব্ধ রয়েছে। এই প্রকল্পটি একজন ব্যক্তি অন্তত ২০ বছর চালানোর পরেই বন্ধ করতে পারবে। কোন ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ধারক যারা কোনো বিধিবদ্ধ সামাজিক নিরাপত্তা প্রকল্পের সদস্য নয় একমাত্র তারাই এই প্রকল্পে যোগদান করতে পারেন।

সরকারের “স্বাবলম্বন যোজনা এন.পি.এস. লাইট” এর সকল বিদ্যমান সদস্যদের আ্যকাউন্ট স্বয়ং-ক্রিয়রূপে অটল পেনশন যোজনায় রূপান্তরিত হয়ে যাবে। এটা এখন স্বাবলম্বন প্রকল্পের প্রতিস্থাপন করবে যা দেশ জুড়ে সেরকম জনপ্রিয়তা অর্জন করেনি।

কিভাবে নথিভুক্ত করবেন ?

অটল পেনশন যোজনার জন্য নথিভুক্ত করার আগে অ্যাকাউন্ট ধারককে আগে একটি অনুমতি ফর্ম অবশ্যই পূরণ করতে হবে এবং তার ব্যাংকে জমা দিতে হবে। এই ফর্মের আবশ্যক বিষয়গুলি হল অ্যাকাউন্ট নম্বর, স্ত্রী এবং মনোনীত ব্যক্তি (নমিনি)-র বিবরণ সহ সম্পূর্ণ বিবরণ এবং অনুদান পরিমান অটো ডেবিটের অনুমোদন। এই প্রকল্পের জন্য অ্যাকাউন্ট ধারককে নিশ্চিত করতে হবে যে তার অ্যাকাউন্টে প্রতি মাসে যেন যথেষ্ট পরিমাণ ব্যালেন্স থাকে, নাহলে সেই ব্যক্তিকে একটি মাসিক জরিমানা দিতে হবে, যেমন –

  • ১০০/- টাকার মাসিক বিনিয়োগের জন্য ১/- টাকা
  • ১০১/- থেকে ৫০০/- টাকার মাসিক বিনিয়োগের জন্য ২/- টাকা
  • ৫০১/- থেকে ১,০০০/- টাকার মাসিক বিনিয়োগের জন্য ৫/- টাকা
  • ১,০০১/- টাকার অধিক মাসিক বিনিয়োগের জন্য ১০/- টাকা

যদি এই প্রকল্পের প্রতি কোন অর্থ প্রদান না করা হয়, তাহলে –

  • ছয় মাস ধরে অর্থ প্রদান না করলে, ধারকের অ্যাকাউন্ট নিথর করে দেওয়া হবে।
  • বারো মাস ধরে অর্থ প্রদান না করলে, ধারকের অ্যাকাউন্ট নিষ্ক্রিয় করে দেওয়া হবে।
  • চব্বিশ মাস ধরে অর্থ প্রদান না করলে, ধারকের অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া হবে।

যাদের কোন ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট নেই তাদের জন্য : একজন ব্যক্তিকে প্রথমে কে.ওয়াই.সি নথি এবং আধার কার্ড জমা দেওয়ার দ্বারা একটি ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। তাকে এ.পি.ওয়াই. প্রস্তাবনা ফর্মটিও জমা দিতে হবে।

প্রকল্প থেকে প্রস্থান : অটল পেনশন যোজনার জন্য নথিভুক্ত করেছেন এরকম একজন অ্যাকাউন্ট ধারক কোনরকম সাধারণ পরিস্থিতিতে ৬০ বছর বয়সের পূর্বে এই প্রকল্প থেকে প্রস্থান করতে পারবেন না। শুধুমাত্র বিশেষ পরিস্থিতিতে এই প্রকল্প থেকে প্রস্থান করা সম্ভব, যেমন – বিনিয়োগকারীর যদি হঠাৎ মৃত্যু ঘটে।

আবেদন পত্র :

আবেদনপত্রটি, http://www.jansuraksha.gov.in/FORMS-APY.aspx থেকে ডাউনলোড করা যাবে। এই আবেদনপত্র বিভিন্ন ভাষায় উপলব্ধ, যেমন – ইংরেজি, হিন্দি, গুজরাটি, বাংলা, কন্নড, উড়িয়া, মারাঠি, তেলুগু এবং তামিল।

বিভিন্ন পেনশন বিকল্পের জন্য ইঙ্গিতবহ বিনিয়োগ (ভারতীয় মূদ্রায়)


প্রার্থীর বয়স মাসিক বার্ধক্য ভাতা 1000/- টাকা মাসিক বার্ধক্য ভাতা 2000/- টাকা মাসিক বার্ধক্য ভাতা 3000/- টাকা মাসিক বার্ধক্য ভাতা 4000/- টাকা মাসিক বার্ধক্য ভাতা 5000/- টাকা
18 42 84 126 168 210
20 50 100 150 198 248
25 76 151 226 301 376
30 116 231 347 462 577
35 181 362 543 722 902
40 291 582 873 1164 1454
মোট অর্থ 1,70,000 3,40,000 5,10,000 6,80,000 8,50,000

* অটল পেনশন যোজনা প্রচারপত্র থেকে গৃহীত তথ্য।

দেশ জুড়ে প্রবর্তন

অটল পেনশন প্রকল্প এবং অন্যান্য বীমা প্রকল্প একই সাথে ইউনিয়ন এবং মুখ্যমন্ত্রীদের দ্বারা ৯-ই মে চালু করা হয়েছে। ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কলকাতা থেকে এই প্রকল্প চালু করেন। বহু সংখ্যক জেলা সদর এবং রাজ্যের রাজধানী দেশ জুড়ে ১১৬-টি এলাকায় এই প্রবর্তন কার্যকারিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইতিমধ্যেই ১১-ই মে ২০১৫ সালের মধ্যে ৪১,১২৪ জন মানুষ এই প্রকল্পের জন্য নিবন্ধিত হয়েছেন।

হিন্দিতে এই সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন অটল পেনশন যোজনা (এ.পি.অয়াই) – হিন্দিতে

মোদী কর্তৃক প্রবর্তিত আরো কর্মসূচি –


  • প্রধান মন্ত্রী জীবন জ্যোতি বীমা যোজনা (পি.এম.জে.জে.বি.অয়াই)
  • প্রধান মন্ত্রী সুরক্ষা বীমা যোজনা (পি.এম.এস.বি.অয়াই)
  • মুদ্রা ব্যাংক যোজনা
  • সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা
  • বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও পরিকল্পনা
  • More articles from :
    Comments

    (required)